ধন রতন কুবের মুকেশ আম্বানি নিয়ে আসতে চলেছে UPI পেমেন্ট App!

এবার  ধনকুবের মুকেশ আম্বানি পা রাখতে চলেছে UPI এর দুনিয়ায় । যার ফলে প্রতিনিয়ত, Phonepe, Google pay, paytm এম এর মত সংস্থাগুলি করার সমস্যা মুখে পড়েছে কারণ  তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী হতে চলেছে নেটওয়ার্কের দুনিয়ার বিশাল কোম্পানি Relince Jio।

UPI (Unified Payments Interface)  হল  একটি তাৎক্ষণিক  পেমেন্ট সিস্টেম যা  ভারতীয় পেমেন্ট কর্পোরেশন (NPCI)  দ্বারা প্রকাশিত । ২০16 সালে  এটির সূচনা হয় এবং ভারতীয় ডিজিটাল পেমেন্ট এর ক্ষেত্রে একটি বড় লেনদেনের বিপ্লবের সূচনা ঘটায়। UPI  এটি সাধারণত দ্রুত পেমেন্টের একটি বিশাল বড় প্ল্যাটফর্ম,  যা IPMS(Immediate Payment Service)  আধার ভিত্তিক পেমেন্টের একটি  সিস্টেমের মেলবন্ধন,  এটি গ্রাহককে কিংবা ক্রেতাকে অ্যাপের মাধ্যমে  এক  বা  একের অধিক  অ্যাকাউন্ট  পরিচালনার সুবিধা  দেয়। UPI  ব্যবহারকারীদের  এক স্থান থেকে অন্য স্থানে  পেমেন্ট স্থানান্তর করা কিংবা কোন কিছু কেনাকাটার বিনিময় পেমেন্টের সুবিধা ও আরো অন্যান্য  সুবিধা দিয়ে থাকে ।

UPI –  এই অ্যাপের প্রধান বিশেষত্ব হল  এটিএম কার্ড কিংবা ক্রেডিট কার্ডের মত  নয়,  এটি সম্পূর্ণ ডিজিটাল মানে সবকিছুই করা যাবে একটি মোবাইল থেকে, QR code স্ক্যান করে  ভার্চুয়াল পেমেন্ট  এড্রেসে  পেমেন্ট করা যায়। এই ইউপিআই apps মার্কেটে আসার পর ক্রমাগত এর জনপ্রিয়তা দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে যার মাধ্যমে ব্যক্তিগত নয় ব্যবসার ক্ষেত্রে এই অ্যাপের  ব্যবহারিক  জনপ্রিয়তা  অনেক বেশি। বিশেষ করে phonepe, Google Pay ,paytm, BHIM  সব Apps  এই UPI এর ওপর নির্ভরশীল করে তাদের ব্যবসাকে ক্রমাগত উন্নতির দিকে দিন-কে- দিন বাড়িয়ে চলেছে ।

দেশ ও বিদেশে UPI  এর  আকার ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে ,  মানুষ এখন ডিজিটাল হাওয়ায়  ডিজিটাল লেনদেনের সংখ্যাও ক্রমাগত  হু হু করে ক্রমাগত বেড়ে চলেছে। যার কারণে  বড় বড় সব কোম্পানিগুলো র নজর UPI  ব্যবসার উপর।  তাই  একইভাবে  মার্কেটে  আসতে চলেছে মুকেশ আম্বানির Jio Finance App। আজ সেও পিছিয়ে নয় কারণ তাড়াতাড়ি সে মার্কেটে আসতে চলেছে,  খবর অনুযায়ী মুখের আম্বানির কোম্পানি প্রবেশ করেছে ব্যাংকিং সেক্টরে যার কারণে সে নিয়ে এসেছে জিও ফাইন্যান্স অ্যাপ ।  সংস্থার খবর অ্যাপের বিটা ভার্সন অলরেডি লঞ্চ করা হয়ে গেছে। যার কারণে সমস্যা মুখে পড়ে গেছে পেটিএম,  ফোনপে,  গুগোল পে  আরও অন্যান্য কোম্পানি।

Jio Finance  অ্যাপস  এর বিটা ভার্সন লঞ্চ  করাকে  গোটা ব্যবসায়িক সংস্থা দেখছে একটি উল্লেখযোগ্য পদক হিসাবে, আর এই অ্যাপের মাধ্যমে  স্বাস্থ্য বীমা, গাড়ি বীমা, ডিজিটাল পেমেন্ট,  ডিজিটাল ব্যাংকিং, ডিজিটাল  মিউচুয়াল ফান্ডের সুবিধা,  ডিজিটাল লোনের সুবিধা, এছাড়া অ্যাডভাইজারের সুবিধা রয়েছে। এটি একটি  কম্বো ফিচারস অ্যাপস।

এই অ্যাপস এর সাথে জড়িতে রয়েছে বিভিন্ন সংস্থা,  যার মাধ্যমে গ্রাহক খুব সহজেই পেয়ে যাবে লোনের পরিষেবা সরাসরি ব্যাংক থেকে মোবাইলের মাধ্যমে এছাড়াও গ্রাহক তার স্বাস্থ্য বীমা গাড়ির বীমা কিংবা যেকোনো ইন্সুরেন্স করতে পারবে খুব সহজে এই জিও ফাইন্যান্স অ্যাপস এর মাধ্যমে,  পাশাপাশি যে কোন ব্যক্তি ব্যাংক থেকে মিউচুয়াল ফান্ডের বিনিময় এই অ্যাপস এর মাধ্যমে থেকে সরাসরি পেয়ে যাবে লোনের সুবিধা ।

  ধন রতন কুবের মুকেশ আম্বানি হচ্ছে  ব্যবসায়িক  কৌশলের  চরম বুদ্ধিমত্তা।  তিনি  Jio কে একদম “0”  থেকে Hero-তে নিয়ে  গেছেন আর  টেলিকম দুনিয়ায় বিশাল  কোম্পানির এক সাম্রাজ্যের স্থাপন করেছেন, যেটি কিনা শুরু হয়েছিল কয়েক বছর আগে। শুরুতে  বিনিয়োগকারীদের পরিষেবা দিয়েছে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আর গ্রাহক তার সুবিধে নিয়েছে বিপুল পরিমাণে।  ব্যবসায়ী পর্যালোচনায় আরো জানা গিয়েছে  জিও  আগামী কয়েক বছরের মধ্যে হোম লোনের  ব্যবসায়িক  প্রসাদ বৃদ্ধি  করবে,  আর ব্যবসায়িক জগতে এক বিপুল সাম্রাজ্যের স্থাপন করবে।

এই ধরনের আরো টেলিকমের নিত্য নতুন খবর পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটা ফলো করুন ।

Leave a Comment